আত্মপরিচয় -হাবিবুন নাহার মিমি ।

আত্মপরিচয়
হাবিবুন নাহার মিমি


আমি কাজী নজরুলের বিদ্রোহ
রবি ঠাকুরের সোনার তরী,
ভয়কে আমি জয় করি হেসে
দুঃখরে না ডরি।
ঝড় কে আমি করি কুপোকাত
যতই হোক সে ক্লেশ,
সিংহল ভেঙে সুর সৈনিক হেনে
অহংকার নাই লেশ।
আমি মহাত্রাসেরও বেশি ভয়
আমি অভিমানী আমি ক্ষুব্ধ,
দেখলে কোথাও অন্যায়
আমার জ্ঞান বুদ্ধি হয় লুব্ধ।
আমি শ্যামলিমা ছায়া ছবি
আমি বৈশাখের উত্তপ্ত রবি।
আমি নিখিলের চোখে উত্তপ্ত রোষে অদম্য উল্কা কবি,
যবে আকাশ কাপিয়া স্বর্গ ছাপিয়া উদিত ধ্বংস ভবি।
আমি প্রভঞ্জন উল্লাস ধারা
দেই যকসম পাহারা,
জ্ঞান তৃষ্ণার্ত শিক্ষার্থী যেন
পিপাসে সিন্ধু যারা।
আমি দেবশিশুর মত তুরিয়ানন্দ ক্ষত,
আমি ক্ষেপা ব্রাহ্মণ যার দৃষ্টিতে বিহগ মরে শত।
আমি বিদগ্ধ অগ্নির দুঃখচ্ছায়া কথা
আমি বালিকা বধূর বুকের জমানো ব্যাথা।
আমি প্রবল বিধ্বংসের আগাম বার্তা
হাজারো হৃদয় ফাটা ত্রাসে,
আমি সাইক্লোন, কালবৈশাখী
যে হঠাৎ উন্মত্ত হাসি হাসে।
আমি নিজেরে আজিকে নিয়াছি চিনিয়া
বলো কি আজ মোর ভয়?
জীবনপথে আসবে আসুক বাধা
আমি সব বাধা করিব জয়।
আমি অনুভূতিহীন এক রোবট
যে বিরামহীন করে কাজ,
আমি হৃদয় উগারী ধ্বংসের বার্তা
তোরা পর পর যুদ্ধের সাজ।
আমি টর্নেডো মহাকালানল
আমি দানব দেবতার ভয়,
আমি যাহা পাই অকাতরে করে যাই
চূর্ণ, নয় ছয়।