রূপচর্চায় টমেটো ব্যবহার।

বন্ধুত্বের ক্ষেত্রে বিশ্বাস যেমন সম্পর্ককে মজবুত করে, তেমনি রূপচর্চায় টমেটো ব্যবহার করার ক্ষেত্রে বিশ্বাস রাখুন স্বাচ্ছন্দ্যে। টমেটোতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন ‘সি’, ‘ই’, ‘কে’, ‘বি-১’, ‘বি-৬’, ‘বি-৩’, ‘বি-২, আয়রন, ম্যাগনেসিয়াম ও পটাশিয়াম। প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টি-অক্সিডেন্টে ভরপুর টমেটো শুধু সুস্বাদু রেসিপি নয়, বিউটি কেয়ারেও আস্থাশীল। প্রতিদিন আমরা কম-বেশি কোনো না কোনো কাজে বাইরে বের হই। আর রাস্তার ধুলোবালি, ধোঁয়া, পলিউশনের সঙ্গে সূর্যরশ্মি ইত্যাদি আরো অনেক কিছু নিয়ে আমাদের প্রতিদিনের পথচলা। এর থেকে বিরতি না হলেও ত্বকের যত্ন নিয়ে ত্বক সুরক্ষার উপায় রয়েছে। ব্যস্ততায় অনেকেই রূপচর্চাকে ঝামেলা মনে করেন। তবে রূপ রক্ষার জন্য যে পার্লারেই যেতে হবে এমন নয়, ঘরেও আপনি কাজের স্বল্প সময় ব্যয় করে চটজলদি রূপচর্চা করতে পারেন। সকালে নাশতা বানাতে বানাতে বা রাতে ঘুমানোর আগে ১০-১৫ মিনিট নিজেকে সময় দিন।
যাদের প্রতিদিন রোদে বাইরে বের হতে হয়, তাদের সানট্যানের সমস্যা দেখা দেয়। নিয়ম করে সানস্ক্রিন লোশন সবসময় দেয়া হয়ে ওঠে না। তাই অনেক সময়ই এই সমস্যা প্রকট হয়ে দেখা দেয়। ইচিং বার্নট ফিলিং খুবই সাধারণ লক্ষণ সানট্যানের। ত্বকের থেকে সানট্যান করার জন্য ব্যবহার করুন টমেটো। তিন চা-চামচ টমেটোর রসের সঙ্গে দুই চা-চামচ শসার রস মিশিয়ে ফ্রিজে রেখে দিন। টমেটো-শসা কুচি করে কেটে চটকে রস তৈরি করুন। তবে এটা দু-তিনদিনের বেশি ব্যবহার করার প্রয়োজন নেই। রোদ থেকে বাড়ি ফিরে ত্বকের যেসব অংশে সানট্যান হয়েছে, সেখানে এই মিশ্রণ ৮-১০ মিনিট লাগিয়ে রাখুন। শুকিয়ে গেলে ঠাণ্ডা পানিতে মুখ ধুয়ে নিন। সপ্তাহে দু-তিনবার এই মিশ্রণ লাগান সানট্যান আক্রান্ত জায়গাগুলোয়। নিয়মিত চর্চায় উপকার পাবেন।
যাদের ত্বক তৈলাক্ত, তাদের সব থেকে বড় সমস্যা ওপেন পোরস এবং ব্ল্যাক হেডস। ওপেন পোরসে খুব তাড়াতাড়ি ধুলো-ময়লা জমে যায়। ফলে অ্যাকনে, পিম্পলের সমস্যা আরো বেশি দেখা দেয়। টমেটোতে অ্যাসিডিক গুণ থাকার পাশাপাশি পটাশিয়াম এবং ভিটামিন ‘সি’ও আছে, যা আপনার ত্বক পরিষ্কার রাখতে সাহায্য করে। ত্বক পরিষ্কার রাখতে টমেটো স্লাইস করে নিয়ে সার্কুলার মুভমেন্টে ত্বকে ৫ মিনিট ঘষুন। ত্বকের ওপর স্লাইস রেখে ১৫ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন। এভাবে পরপর তিনদিন করুন, সমস্যা কাটবে।
ওপেন পোরসের মুখ বন্ধ করার জন্য এক টেবির চামচ টমেটোর রসের সঙ্গে দুই ফোঁটা লেবুর রস মিশিয়ে তুলোর সাহায্যে সার্কুলার মুভমেন্টে হালকা ম্যাসাজ করুন। শুকালে ধুয়ে ফেলুন হালকা গরম পানিতে।
শুষ্ক, ভালো ত্বক এ সময়টাতে যত্নের অভাবে নষ্ট হয়ে যায়। আর নিয়মিত রূপচর্চায় আপনার ত্বকে সজীবতা ফিরিয়ে আনে। ৩ চা-চামচ টমেটোর রসের সঙ্গে ১ চা-চামচ মধু ভালোভাবে মিশিয়ে নিন। এবার সারা মুখে ও গলায় এই মিশ্রণ লাগিয়ে নিন। শুকিয়ে এলে ঠাণ্ডা পানিতে ধুয়ে নরম কাপড় বা টাওয়েল দিয়ে মুছে নিন। যাদের মধু স্যুট করে না, তারা টমেটোর রসের সঙ্গে টকদই ব্যবহার করুন। মুখ ধোয়ার সময় বেশি ঘষবেন না। এতে ত্বক খসখসে হয়ে যায়।
২ চা-চামচ টমেটোর রসের সঙ্গে ৪ চা-চামচ বাটার মিল্ক মিশিয়ে কিছুক্ষণ ফ্রিজে রেখে ঠাণ্ডা করুন। এবার সানবার্ন হয়েছে এমন ত্বকে এই মিশ্রণটি লাগিয়ে রাখুন। আধাঘণ্টা পর ধুয়ে ফেলুন। নিয়মিত ব্যবহারে উপকার পাবেন। অ্যাকনে সমস্যা আমাদের অনেকের ত্বকেই হয়ে থাকে। বিশেষ করে তৈলাক্ত ত্বকে এই ঝামেলা বেশি পোহাতে হয়। এর থেকে পরিত্রাণে সাহায্য করে টমেটো। টমেটো বেটে সারা মুখে ভালোভাবে লাগিয়ে নিন। ১ ঘণ্টা মুখে লাগিয়ে রাখুন। এরপর ধুয়ে ফেলুন। নিয়মিত ব্যবহারে অ্যাকনের সমস্যা কেটে যাবে। যত্নের অভাবে ত্বকে তৈরি হতে পারে নানা সমস্যা। ত্বক শুষ্ক হয়ে যেতে পারে। ত্বকের ওপরের স্তর থেকে পাতলা চামড়া উঠতে পারে বা ত্বক চুলকাতে পারে। এক্ষেত্রে টমেটোর সঙ্গে দই মিশিয়ে একটি মাস্ক তৈরি করুন। দই ত্বককে প্রোটিন বুস্ট দেয় এবং ত্বককে নরম রাখতে সাহায্য করে আর টমেটো ত্বক ঠাণ্ডা রাখতে সাহায্য করে। এই ফেসমাস্ক বানানোর জন্য অর্ধেক টমেটো বেটে বা ব্লেন্ড করে নিন। এর সঙ্গে দুই টেবিল চামচ দই ভালোভাবে ফেটে নিন। ২০ মিনিট মুখে এই মিশ্রণ লাগিয়ে রেখে হালকা গরম পানিতে ধুয়ে ফেলুন। এভাবে সপ্তাহে চারদিন লাগানোর চেষ্টা করবেন।
ক্লিনজার হিসেবেও টমেটোর জুড়ি নেই। কম্বিনেশন স্কিন যেমন তৈলাক্ত, স্বাভাবিক শুষ্ক ত্বকে ক্লিনজার হিসেবে টমেটো-অ্যাভোকাডো মাস্ক খুব উপকারী। এতে টমেটোর অ্যাস্ট্রিনজেন্ট এবং ব্ল্যাক হেডস রিডিউসিং ও অয়েল রিডিউসিং গুণ এবং অ্যাভোকাডোর অ্যান্টিসেপটিক ও ময়েশ্চারাইজিং গুণ!
টমেটো ও অ্যাভোকাডো একসঙ্গে পেস্ট করে মুখে পুরু করে লাগিয়ে নিন। ২০ থেকে ৩০ মিনিট রেখে ঈষদুষ্ণ পানিতে ধুয়ে ফেলুন। ফ্রেশ লাগবে, সঙ্গে ত্বকের জেল্লা বাড়বে।
টমেটোর এই নানা গুণ আপনার ত্বকে বন্ধুত্বপূর্ণভাবে উপকার করবে। টমেটো ব্যবহারে সুবিধা ঘরে সব সময়ই কাছে পাবেন। আড্ডা, অবসর বা ফোনে কথা বলার সময়ও টমেটো দিয়ে রূপচর্চা করে আপনি হয়ে উঠুন ফ্রেশ, সজীব ও উজ্জ্বল ত্বকের অধিকারী।