মজার শৈশব – ফারহানা কলি।

শবে বরাতের কথা শুনলেই হলুয়া আর চালের রুটির প্লেট ভাসে চোখের সামনে😋😋🙈🙈..সন্ধ্যা হতেই শুরু হয়ে যেতো ট্রেতে করে বাড়ী বাড়ী সেই হালুয়া আর রুটি পৌছে দেয়া…বাসার কনিষ্ঠ হওয়ায় এই কাজটা আমার উপরই বর্তায় কিন্তু আমার কখনো যাওয়া হয়নি কারো বাসায়। আম্মা কাজের ছেলে-মেয়েকে ভাইয়াদের কাউকে দিতে পাঠাতো ।

আকর্ষনীয় এই রাতের মধ্যে উল্লেখযোগ্য দুই রাত । শবে-বরাত আর শবে-কদর ।মজার ব্যাপার ছিল ভাইয়াদের কান্ড কারখানা। ছোট ছিলাম তাই অনেক আদর আর বিশ্বস্তত ছিলাম ।

হা হা ..এখন মনে পড়লে হাসিতে পেটে খিল দেয়। ভাইয়ারা ঘুরে ঘুরে সব মসজিদে নামাজ পড়তো । নামাজের নাম করে সারা রাত রাস্তায় ঘুরাঘুরিও করত আর এর মাঝে যদি নজর গেল কারো গাছের দিকে তো সেই রাতের ইবাদত হলো যেন ধরা না পরে ।।😁😁ভাইয়া খুব মিস্ করি সেই সব শৈশবের অনাবিল সুন্দর দিনগুলো😒😒😒😍😍😍😍😍😍😍😍

print

কমেন্ট করুন