বিরক্ত -কোহিনূর আক্তার।

বিরক্ত
-কোহিনূর আক্তার


আমি তো তোমার বিরক্ত হতে চাইনি ।
হাত বাড়িয়ে বৃষ্টির ফোঁটা আলিঙ্গন
করতে যাইনি।
ঝরুক মেঘ ,
ঐ দুরন্ত সীমানায় অসান্ত ঢলে।
ভেসে যাক দুরন্ত মন ,তবুও ভিজবো না
তোমার সাজানো কৃত্রিম জলে ।
আমি আমার সীমারেখা টেনেছি ।
তাতেই বহুকাল হেঁটে নিজেকেই পেয়েছি ।
পথের ধারের ফুল ,কখনো দামি ফুলদানিতে
ওঠে না ।
জীবনের জন্ম সবখানে হয় না ।
যেখানে পাবেনা সুবাস ফুল ।
সেখানে করে এই মনটা ভুল।
আমি তো তোমার বিরক্ত হতে চাইনি।
তোমার পিছনে ছুটে, কাব্যদেবী হতে যাইনি।
তোমার মদের গ্লাস আমি হতে পারিনি ।
হতে চাইনি, করুণার কোনো পাখি ।
সদা ভিজুক কাজল কালো আঁখি।
উড়ে যাক,মনের বসত ঘর ।
ভেঙে যাক,মনের স্বপ্ন তর।
আমি তো তোমার বিরক্ত হতে চাইনি
তোমার আকাশে অনেক আলো তা তো
বুঝতে পারিনি।
শরতের দেবীর মতো,ঈশ্বরের তিলক
পরেছিলাম অনাবৃত মনে ।
হতে পারিনি মন তুল্য দেবী,
যুগ-যুগান্তরে ফুলশয্যার ক্ষণে ।
আমি তো তোমার বিরক্ত হতে চাইনি।
কখোনো ভোরের আকাশে গগন তারা দেখেনি ।
আমি তো তোমাকে বিরক্ত করতে চাইনি ।
১২/৬/২০