কে তুমি যুবক ?  -কোহিনূর আক্তার।

কে তুমি যুবক ?
 -কোহিনূর আক্তার।


কে তুমি যুবক-
এই গোধূলি লগনে ?
তোমার নীল ঘর মত্ত উর্বশী বদনে ।
আমার উঠান কেবল ঝরা পাঁপড়িতে ভরা ।
তাতেই কি দেখতে পাবে হে ! যুবক বর্ষা ঝরা ।
নিখিলে ফুটে যাক অধরা কলি।
আবার লেখা হোক ,না বলা বুলি।

পরন্তু বিকেলে নিজেকে দেখি সুদূর প্রসারীর যাত্রী।
আর তুমি মালা নিয়ে প্রেম সাধনে তান্ত্রিক ।
আমার ধুসর চোখে নিখিল তুমি ।
তোমার চোখে ঐশ্বরিক সুখ আমি ।
প্রেম তো চিরকাল আমাকেই ছুঁয়ে যায় ।
আমাতে নয় ।
তবুও বার বার প্রেমে ডুবতে সাধ হয় ।
নিস্তব্ধ কান্না ধরা হিয়ার মাঝে তোমার ছবি ।
আমি তো প্রেম লিখতে পারিনা নইতো কবি।

কে তুমি যুবক –
এই পরন্তু বিকেলে ?
আমার ঝরা বকুলে প্রেমের ডাক দিলে !
আমি তো বসে ছিলাম আমারই ধ্যানে।
নীরবে হারিয়ে যাবো, খুঁজবে না কোনো জনে ।
কে তুমি যুবক ?
নির্জনে অনাবৃত শরীরে প্রেমে ঢেউয়ে ভাসালে ।
ফিরে যাওয়া
ঐশ্বরিক উন্মাদ স্পর্শে প্রেম জন্ম দিলে ।
পরন্তু বসন্তসেনা অবশেষে তুমি হলে ।
কে তুমি যুবক প্রদীপ হাতে
একলা আমার সাথে ?
কে তুমি ?

১৩/৬/২০
৹৹৹৹৹৹৹৹