স্বার্থপর- মুঃ ইসমাইল মুয়াজ

34049616_253504198724834_4006044476630892544_o
গল্পের নামঃ স্বার্থপর লেখকঃ মুঃ ইসমাইল মুয়াজ, বিদ্যালয়ঃ দাগনভূঞা একাডেমী ঠিকানাঃ সোনাগাজী ফেনী।

“আম্মু আসছি”, এই বলে স্কুলের জন্য হাঁটলো নিপল। হঠাৎ তার মনে পড়ল তারতো আজ পত্রিকা নেয়া হয়নি। তাই সে পত্রিকা নিতে হকারের কাছে যাবে এমন সময় একটি বাসের অনিয়ন্ত্রিত গতি তাকে ধাক্কা দেয়। দোষ বলতে গেলে ড্রাইভারের ছিলো, সে তো রাস্তায় এখনও উঠেনি। আশেপাশের লোক ড্রাইভারের পেঁছনে ছুটছে। কিন্ত নিপল রক্তাক্ত শরীরে রাস্তার পাশে শুয়ে আছে।

রিকশা থেকে অফিসে দেরি স্পেশাল নামে খ্যাত রিতম নামল, আর নিজে নিজে ভাবল, এই মেয়েটার জন্য তার আজও অফিসে যেতে দেরি হবে। আর প্রত্যেক দিনের মতো ম্যানেজারের কটুক্তি শুনতে হবে। যখনই সে মেয়েটির পাশে গেল তখন সে তার মোবাইলের রিং শুনলো। এটা হয়ত তার আজকের শেষ ওয়ার্নিং। সে ফোন তুলতে না তুলতে, ম্যানেজারের অবাঞ্ছিত শব্দ শুনতে হলো, যেই সে মেয়েটির কথা বলবে,তখনই ম্যানেজার বলল, ” আজ কোনো অজুহাত নয়, দেরি করে আসলে চাকুরী শেষ”। তার চাকুরী শেষ হবে ভেবে সে তার অফিসের দিকে দৌড়াল কিন্তু মেয়েটির দিকে এক পলকের জন্যও তাকাল না হয়ত মেয়েটির রক্তাক্ত দেহ বলছে, “মানুষ কেন এত স্বার্থপর “।

রিতম অফিসের সবার চোখ এড়িয়ে ঢুকে তার কাজ শুরু করল। কেননা সে চায় না যে প্রতিদিনের মতো সে আজও অন্যদের উপাহাসের পাত্র হতে। তাই তার এরকম চল-চাতুরী। এরই মাঝে সকলে তাদের কাজ নিয়ে ব্যস্ত হয়ে পড়ল। সে ভাবল, অন্তত আজকে সময় মতো আসতে পারা গেল। তার অফিস প্রতিমধ্য আচারণে মেয়েটির প্রতি বিন্দুমাত্র মানবিকতা প্রকাশ পায় নি।

হঠাৎ নিস্তব্ধ অফিসে কান্নার শোরগোল শোনা গেল তাও আবার ম্যানেজারের। সে কখন কাঁদছে বলে মনে হয় না অফিস স্টাফদের। কেননা তিনি সব সময় গম্ভীর আর নিশ্চুপ মোড়ে থাকেন। কিন্তু আজ তিনি কাঁদছেন আর কাকে ফোনে বলছেন, ” আমি হাসপাতালে এখনই আসছি”। সব অফিস স্টাফরাও গেল। সবার সাথে রিতমও গেল। কিন্তু ততক্ষণে ডাক্তার বলল, আরেকটু আগে আনলে হয়ত বাঁচানো যেত। সী এজ নো মোর।” আর তাতেই ম্যানেজার কাঁদতে লাগল। তিনি বললেন,” উঠ মা, উঠ”। আর মৃত নিপল নামক মেয়েটিকে দেখেই স্তম্ভিত হয়ে আছেন রিতম। প্রায়ই সে তার বাকশক্তি হারিয়ে ফেললেন। আর নিজেকে অপরাধী মনে করে অঝোরে কাঁদতে লাগলেন। মেয়েটির নিথর দেহখানী কিছু যেন বলতে চাচ্ছে, “আজকে দেরী করলে কী আর হতো রিতম।”

 

গল্পের নামঃ স্বার্থপর
লেখকঃ মুঃ ইসমাইল মুয়াজ,
বিদ্যালয়ঃ দাগনভূঞা একাডেমী
ঠিকানাঃ সোনাগাজী ফেনী।
print

কমেন্ট করুন