আমার আকাশ তুমি, রাঙা প্রভাতের হাসিও
তাই, ওখানে মেঘ জমলে আমি ভালো থাকার কথা ভুলে যাই, বেমালুম
আমার যে চোখে তুমি নিজের প্রতিচ্ছবি খোঁজ অহর্নিশ,
সেখানে বর্ষা নামে ভীষণ এক উদ্দীপ্ত অবলীলায় – ।
পানকৌড়ি রঙের এক পূর্ণযৌবনা হাসি তোমার, কেমন বেসামাল ভুলো মনে
ঢেউয়ের সাথে সাথে পাড়ও ভাঙ্গে আমার, এক সমুদ্র হাতছানি দিয়ে
স্বর ছুঁয়ে দিতে গিয়ে দেখি, সেখানে তোমার ভীষণ জ্বলুনি
কেমন ঠাউরে উঠতে না পারার ক্ষোভে নিষ্ফল আক্রোশে নির্বাক থাকে সদা !
আমার অবাক অবাক ঘোরলাগা বিহ্বলতা কাটিয়ে ওঠার আগেই দেখি, ফাঁকা চারপাশ
তুমি কখন সদর দরজা গলিয়ে পথে নেমেছো আবার, কোন সর্বনাশা ঝড়ের আহ্বানে –
যদি অনুভূতি থেকে আলাদা করে দেখতে পারো আমার অনুভবটুকু, জেনো –
কেবলমাত্র তখনই আমি তোমার, অনুবাদের সবটুকু ভাষা নিয়ে দাঁড়িয়ে, তোমার নিজের জমিনে !