আনীলা’র ডায়েরী- ফারহানা কলি।

আনীলা’র ডায়েরী। ০৩.১৫.২০১৯ শুক্রবার। প্রায় এক মাস হলো মা’কে ফোন করি না। অন্যান্য সময় মাও কাউকে না কাউকে দিয়ে ম্যাসেজ পাঠায় নয়ত ফোন করে । কারো সাথে কথা হলে বলে আমাকে ফোন করতে । এবার মাও কোন খবর নেয় নি । এমন কি আমার ছোট মেয়ে সুহার জন্মদিনে ও কোন বার্তা পাঠায় নি । সুহা […]

Read more

সমস্যা আমাদের নিজেদের, না আমাদের সমাজের ?- ফারহানা কলি।

আমার প্রতিবেশি একজন দক্ষিণ আমেরিকান । ভদ্রলোক এখানে আছেন প্রায় বিশ বছরের বেশি সময় ধরে । তিন ছেলে । স্রী ক্যান্সারে মারা গেছেন বছর তিনেক হলো । আমরা একে অপরের প্রতিবেশি হলেও আমরা কেউ কাউকে খুব একটা দেখি না। কারণ এখানে কেউ কাউকে দেখার মতো এতো সময় নাই ।তবুও দেখা হলেই সহাস্যে একে অপরকে কুশলাদি […]

Read more

বহুদূর -ফারহানা কলি।

বহুদূর -ফারহানা কলি বহুদূর বহুদূর চলে এসেছি একেলা চেনা সব পথ পেছনে ফেলে অচেনার পথে, কখনও আশার আলো দেখেছি কখনও বা হতাশার। তবুও রাখিনি মনের কোনে কভুও কোন আশংকা তার। চেনা ঘর চেনা দোর চেনা পাচিলের ঘেরা সব কিছুই ছেড়েছি শুধু আজ আমি একেলা। অজানা অচেনারে যদি নাই আমি জানি কেমন করে চিনবো বলো নতুন […]

Read more

আমি স্বপ্ন দেখি – ফারহানা কলি।

আমি স্বপ্ন দেখি -ফারহানা কলি  মানুষ বলে, আমি গাছ হতে চাই । আমি বলি না, গাছ হতে চাই না । গাছ স্বপ্ন দেখে কিনা আমি জানি না , কিন্তু আমি স্বপ্ন দেখি । আকাশ ছুঁয়ে দেখার । মেঘের কোলে ভাসার। রংধনুর সাত রংয়ে সাজার। অমাবস্যার অন্ধকারে ভূতের ভয় পাওয়ার। পূর্ণিমার ভরা জোসনায় তোমার সাথে থাকার। […]

Read more

ঘুমন্ত মানুষের লাশ – ফারহানা কলি।

ঘুমন্ত মানুষের লাশ – ফারহানা কলি। বরফ শীতল ঘরের নদীতে ,যখন তুমি একলা ফেলে বিদায় নাও , তন্দ্রাচ্ছন্ন মোহে নির্জীব পরে থাকা দেহে, কেবলই একটু ঘুম জড়ায়। তবুও উমম শব্দের প্রতিবিদায় দেয়া মনের , একাকীত্ব ভর করে। আবার গভীর ঘুমে তলিয়ে যেতে থাকা , নিশাচরদের সব ঘুম কেড়ে নিয়ে । এক নিশীথীনী রাতের অন্ধকার ভেদ […]

Read more

বৃষ্টি ভেজা সন্ধ্যায়- ফারহানা কলি।

বৃষ্টি ভেজা সন্ধ্যায় – ফারহানা কলি। এই যে বাইরে ঝমঝম বৃষ্টি । খুব বলতে ইচ্ছে হচ্ছে, চল বৃষ্টিতে ভিজি । হাতে হাত রেখে , ভেঁজা ঠোঁটে ঠোঁট রেখে , মিলে মিশে একাকার হই । এক কাপ ধোয়া উড়া কফি হাতে, ভিজে দাড় কাক হই , খোলা আকাশের নিচে । দুরু দুরু বুকে কাঁপা কাঁপা ঠোঁটে […]

Read more

ময়ূরাক্ষী হুমায়ূন আহমেদ- ফারহানা কলি।

১৯৯০ সাল, আমি তখন ৫ম শ্রেণীতে পড়ি স্পষ্ট মনে আছে। ছোট চাচার কাছ থেকে নিয়ে পড়া শুরু আমার হিমু আর রূপার গল্প। ছোটদের বই পড়ার হাতে খড়ি যখন ২য় শ্রেণীতে পড়ি । আমার ছোট চাচা আমার গল্পের বইয়ের যোগানদাতা আর স্কুলের লাইব্রেরি । তাছাড়া ছিল আমাদের এলাকার কিছু বই দোকানী । হুম ১৯৯০ সালে প্রথম […]

Read more

চিঠি – ফারহানা কলি।

প্রিয় অরিন্দম, আপনি করে ডাকার ভেতর যে এক অদ্ভুত সৌন্দর্য আছে তা আপনি নিজেই বুঝবেন । তুই , তুমি যাই ডাকার চেষ্টা করুন না কেন ফিরে আবার আপনিতেই আসবেন , এই আমি বলে রাখলাম । খুব ইচ্ছে থাকা স্বত্তেও আপনাকে লেখা হয়ে ওঠে না । জীবনের দেখানো পথটা আমার বড্ড পিচ্ছিল । দিনকে দিন মনে […]

Read more

শুভ বসন্ত । – ফারহানা কলি

শুভ বসন্ত ।  – ফারহানা কলি ঝলমলে রুপালী রোদ্দুর মাখা দিনের ছোঁয়া নিয়ে , বসন্তের আগমন । মন খারাপের ধুসর দিনের অবসান হোক। চল হাঁটি , অনেক দিন খোলা চুলে হাঁটি না। পথ ভুল করে হারাই না চেনা পথে । ভাবি নি কোন দিন, এমন দিন হবে , যেদিন চেনা পথটি ভীষণ অচেনা মনে হবে […]

Read more

আঠারো টি বছর – ফারহানা কলি।

আঠারো টি বছর -ফারহানা কলি কন্ কনে্ ঠান্ডা শীতের রাতে , দুজন মানুষ পাশাপাশি হাঁটি । হাতে ধোয়া উড়া কফির কাপ । একটু পর পর চুমুক দেয়ই । কারো মুখে কোন কথা নেই । মনে হচ্ছে অনন্তকাল ধরে হেঁটে চলেছি আমরা । এভাবেই হাঁটতে হাঁটতে হঠাৎ করে ফিরে তাকাই , তুমি কি কিছু বলছো ? […]

Read more

বৃষ্টি মূখর সন্ধ্যায় -ফারহানা কলি

বৃষ্টি মূখর সন্ধ্যায় – ফারহানা কলি   আজ সন্ধ্যাটা দেখেছো ? অবিরাম টিপটিপ বৃষ্টি পরছে তো পরছেই। থামা বার একটুও কোন তাড়া হুড়ো নেই । মন খারাপ করা দিনের অবয়ব যেনো। এক কাপ গরম কফি হাতে আমি জানালায়, অলস বেলায় কি যে মোহময় আবেশে, মন জুড়িয়ে যায়। হালকা হিমেল হাওয়ায় দোলা দিয়ে যায় শরীরে। একটু […]

Read more

শরতের সকাল – ফারহানা কলি।

বাংলা হিসেবে শরৎ কাল.. পেজা তুলার মতো সাদা সাদা মেঘ আকাশ জুড়ে.. কাশবনের হলুদ সাদা কাশ ফুলের জন্য মন কেমন করছে বেশ কিছু দিন । সকালের হিম শীতল বাতাসে হাড় কেঁপে ওঠে মাঝে মাঝে । এই সময়ে গাছে গাছে লাগে রংঙের মেলা .. ধীরে ধীরে গাঢ় সবুজ পাতারা হরেক রকম রংঙে নিজেদের সাজিয়ে তুলে যেন […]

Read more

ঘুমন্ত মানুষের লাশ। – ফারহানা কলি।

বরফ শীতল ঘরের নদীতে ,যখন তুমি একলা ফেলে বিদায় নাও , তন্দ্রাচ্ছন্ন মোহে নির্জীব পরে থাকা দেহে, কেবলই একটু ঘুম জড়ায়। তবুও উমম শব্দের প্রতিবিদায় দেয়া মনের , একাকীত্ব ভর করে। আবার গভীর ঘুমে তলিয়ে যেতে থাকা , নিশাচরদের সব ঘুম কেড়ে নিয়ে । এক নিশীথীনী রাতের অন্ধকার ভেদ করে , জানালায় চাঁদ ওঠে। আরেক […]

Read more

মনকথন- ফারহানা কলি।

স্মৃতি গুলো জমে জমে পাহাড় হয়ে ঢাল বেয়ে হয়ে নেমে চলেছে ,বুকের বা পাশের হৃদয় কুঠিরে অস্হিরতার শেকল পায়ে ।অজানা কিসের আহবানে লক্ষীচোরা মন আকু পাকু করে , ভর দুপুরে কোকিল ডাকে । এখন কি বসন্ত নাকি ? গ্রীষ্মের লু হাওয়ায় ঘামে ভেঁজা মন হাহাকার করে । প্রশান্ত বাতাসে বসে পাল তোলা নৌকায় মাঝির দরাজ […]

Read more

ঘরের কাজে সাহায্য করুন- ফারহানা কলি।

রোজার দিনে বাসার সবাই রোজা রাখবে এমনটাই নিয়ম । বয়ো বৃদ্ধ , শিশু কিংবা অসুস্হ্য হলে ভিন্ন কথা । সেক্ষেত্র কোরআন -হাদিসের আলোকে চলতে হবে । আমাদের দেশে রোজা দিনে বাসার সব কাজ কর্ম সেরে ইফতারি , রাতের খাবার , সেহেরীর খাবার সব একদম ঠিকঠাক মতো হতে হবে এমনটিও নিয়মের মতোই । তার সাথে আছে […]

Read more

মন স্বপ্ন- ফারহানা কলি।

অন্ধকার চারিদিক । হঠাৎ হঠাৎ ছিটেফোটা আলো দেখা যায়। টেমস্ নদীর পাড়ে হালকা ঝিরি ঝিরি বাতাসে চুল উড়ে উড়ে এসে পরছে চোখে মুখে । ব্রীজের উপর একা পিছন ফিরে অপলক দাড়িয়ে আছি । স্বপ্নটা মাথায় ঢুকে গেছে । মনে হলেই কেমন যেন অনুভূতি হয়। টেমস্ নদী ,অন্ধকার রাত্রি, ব্রীজ । কখনও কি বলেছি টেমস্ নদীর […]

Read more

মজার শৈশব – ফারহানা কলি।

শবে বরাতের কথা শুনলেই হলুয়া আর চালের রুটির প্লেট ভাসে চোখের সামনে😋😋🙈🙈..সন্ধ্যা হতেই শুরু হয়ে যেতো ট্রেতে করে বাড়ী বাড়ী সেই হালুয়া আর রুটি পৌছে দেয়া…বাসার কনিষ্ঠ হওয়ায় এই কাজটা আমার উপরই বর্তায় কিন্তু আমার কখনো যাওয়া হয়নি কারো বাসায়। আম্মা কাজের ছেলে-মেয়েকে ভাইয়াদের কাউকে দিতে পাঠাতো । আকর্ষনীয় এই রাতের মধ্যে উল্লেখযোগ্য দুই রাত […]

Read more

মন খারাপের দিনে- ফারহানা কলি

 …. মুষল ধারে যখন বৃষ্টি হয় , তাবৎ জিনিস বাদ দিয়ে ,তখন সেই পুরনো ঝুল বারান্দাটা এসে মনের উপর জোওওর.. খবরদারি করে । কেমন করে যেন তখন , অনাবৃষ্টিতেও মনে মনে খুব করে ভিজে যাই । তোমার চোখ দু’টো তখন আমার চোখে ভাসতে থাকে । ঠান্ডা লাগবে বলে যে বকা শুনতে হতো , সেই কথা […]

Read more

শতরুপা অনির্বাণ- ফারহানা কলি।

লেখা ঃ ফারহানা কলি। এক ফালি মেঘ আজ সারা দিন আমার জানালায় উঁকি ঝুঁকি দিয়ে … ফিরে গেলো আকাশের কাছে .. এমনটাই বলে ছিলে তুমি । আমার ঠিক মনে আছে , তবুও তোমার ঐ পৌরুষদীপ্ত কন্ঠের প্রতিটি শব্দ যেন কানের কাছে বেঁজে চলেছে অবিরত ভাবে , কোন রকম রাখ ঢাক ছিল না তোমার সেই আত্মপ্রকাশে […]

Read more

অলস বেলা – ফারহানা কলি।

অলস বেলা ফারহানা কলি। এই সকালটা অন্য রকম হতো । যদি তুমিও অফিস ফাঁকি দিতে, পুরোন দিনের মতো। আমাকে করে নিতে ছিনতাই। রিকসায় হুড দিয়ে চলে যেতাম, নিরিবিলিতে রেঁস্তোরা পাড়ায়। লোকচক্ষুর অন্তরালে অলস দুপুরে। একটু অন্যরকম তুমি… পুরোন আবার সেই আমি। নিজেদের একটু বায়না। বড্ড বেশি মিস্ করছি.. চলো আজ অফিস পালাই.. পুরোন দিনের মতো […]

Read more