বৃদ্ধাশ্রম -সুমাইয়া আক্তার বৃষ্টি।

বৃদ্ধাশ্রম -সুমাইয়া আক্তার বৃষ্টি।

বৃদ্ধাশ্রম “

সুমাইয়া আক্তার বৃষ্টি


নামকরা এক অফিসারের পিতা আমি, নই কোন অশিক্ষিত শ্রমিকের পিতা;
করে চলেছি আজ স্মৃতিচারণ আমার এই বৃদ্ধাশ্রমে আগমনের ইতিকথা।
ছেলে এখন মস্ত ফ্ল্যাটের মালিক,যেখানে অভাব নেই সাজ সজ্জা,
সেখানে অক্ষম এক বুড়ো আমি,নিছকই তার পরিবারের বোঝা!
যখন ছিল খোকা সে,ছিল খুব আদুরে আর আমার কথিত বোকা,
সেই বোকা খোকাই বড় অফিসার হয়ে এখন আমায় দিল ধোঁকা!
‘হাই সোসাইটি’র বাসিন্দা সে এখন,যেমন তেমন না!
তাই মূর্খ এই বৃদ্ধকে তার ওই সোসাইটিতে মানায় না!
ছেলের কাছে পিতা নই,প্রয়োজনীয় এখন পিতার সম্পত্তি,
পিতার দ্বারা তার সকল কিছুরই হয়েছে আজ কার্যসিদ্ধি!
অচেনা তার পৃথিবীতে আমিই ছিলাম কেবল নিঃস্বার্থ পথপ্রদর্শক,
সেই আমিই আজ তার সকল বিবেকহীন কাজের নীরব,অসমর্থক দর্শক!
শূন্যতার শেকড় থেকে ‘স্ট্যটাসে’র শিখড়ে তাকে পৌঁছানোর ইচ্ছাই ছিল আমার একান্ত,
তারই প্রতিদানরূপ ছেলে আমায় বাড়ি থেকে বৃদ্ধাশ্রমে পৌঁছিয়ে পূরণ করলো সন্তান হিসেবে তার দায়িত্ব!
হায়রে ছেলে আমার! এই বুঝি প্রতিফলন তোমার অর্জিত উচ্চশিক্ষার?
তোমায় নিয়ে আজ গর্ববোধ করছি না,কেবলই মন থেকে আসছে ধিক্কার!
হারিয়েছি বলে কাজের ক্ষমতা, আজ তার কাছে হয়েছি পুরোপুরি অক্ষম,
তাই হয়েছে আমার আমৃত্যু শান্তিময় আশ্রয়স্থল এই কারাগার ‘বৃদ্ধাশ্রম’!
(২৪.১০.২০)
Headlines
error: আপনি আমাদের লেখা কপি করতে পারবেন নাহ। Email: Info@mirchapter.com