আলতা রাঙা পা।

একটা সময়ে বাঙালির কনে সাজ অপূর্ণ থেকে যেত হাত-পা আলতায় না রাঙালে। রবীন্দ্রনাথ থেকে শরৎচন্দ্র তাদের গল্পের নায়িকাকে সাজিয়েছেন আলতায়। বর্তমান পরিস্থিতি ও ভিন্ন কিছু নয়। যুগ পাল্টালেও আলতার কদর মোটেও কমেনি। বাঙালিদের আচার অনুষ্ঠানে, দেশীয় উৎসব যেমন: পহেলা বৈশাখ, পহেলা ফাল্গুন, এছাড়াও, ভালোবাসা দিবস, গায়ে হলুদ-বিয়ে, হিন্দুদের পূজা-পার্বণে সব বয়সের মেয়েরাই আলতা পড়তে পছন্দ করে। নাচের অনুষ্ঠানে ঘুঙুর পায়ে আলতা ছাড়া সাজ অসম্পূর্ণ। লাল পাড়ের শাড়ির সঙ্গে লাল টিপ, কাচের চুঁড়ি ও হাতে পায়ে আলতা যেন শতভাগ বাঙ্গালী নারীর শাশ্বত সৌন্দর্য।
আলতা দিয়ে পা সাজানোর সময় কিছু বিষয় লক্ষ রাখুন-
১) পায়ে আলতা লাগানোর পূর্বে পা ধুঁয়ে মুছে নিন।
২) আলতার শিশির সঙ্গে থাকা ব্রাশ দিয়ে পছন্দমত ডিজাইনে আলতা পড়তে পারেন। যদি আরো সরু লাইন চান তবে কটনবাডে বা আলাদা তুলি দিয়ে লাগাতে পারেন। এতে ডিজাইন সুন্দর আঁকা যায়।
৩) হাতের কাছে টিস্যু অথবা সুতি কাপড় রাখুন। যদি আলতা পায়ে ছড়িয়ে যায় তবে দ্রুত মুছে নিন।
৪) যাঁদের হাত-পা ঘামার সমস্যা আছে তাঁদের আলতা না পড়াই ভালো। এতে আলতা ত্বকে ছড়িয়ে যায় ও দ্রুত উঠে যায়।
৫) আলতা ডিজাইন পায়ে ছড়িয়ে যাওয়ার ভয় থাকলে পায়ের চারদিকে টেপ লাগিয়ে নিন। আলতা শুকিয়ে গেলে টেপ উঠিয়ে নিন।
৬) রেখা সুন্দর করতে চাইলে হালকা ও দ্রুত টানে তুলি বা কটনবাড দিয়ে লাইন করুন। প্রথমে গাঢ় লাগাতে যাবেন না। প্রথম দফা হালকা লাগানোর পর দ্বিতীয় দফায় আবার লাগাবেন। চেপে চেপে আলতা লাগাবেন না।
৭) আলতা পা থেকে সহজে উঠতে চায় না। দিন শেষে পায়ে লাগানো আলতা তো তুলতেই হয়। তাই কুসুম গরম পানিতে সামান্য শ্যাম্পু মিশিয়ে ৫ মিনিট পা ভিজিয়ে রাখুন। এরপর ব্রাশ দিয়ে ঘষে ঘষে আলতা তুলে নিন।
কোথায় পাবেন: দেশের যেকোন শপিং সেন্টার, ছোট বড় কসমেটিকস শপগুলোতে আলতা পাওয়া যায়। দাম পড়বে ৫০-১৫০ টাকা।
ডেইলি বাংলাদেশ/জেএমএস/এসজেড

কমেন্ট করুন