ডুয়েট কোচিং নাকি ইন্টার্নশিপ কোনটা করবো?

ডিপ্লোমা ইন ইঞ্জিনিয়ারিং সপ্তম পর্বের শেষ পর্যায়ে সবার মাথায় একটা অকপটে ঝামেলা আটকায় যে ইন্টার্নশিপ করবে নাকি ডিরেক্ট ডুয়েট কোচিং এ ভর্তি হবে বা ইন্টার্নি শেষে চাকুরী করবে।
এই একটা টেনশন মাথা ঘুলিয়ে ফেলে প্রায়।
ডুয়েট কোচিং করা আমার মতে সবার-ই উচিত। ডুয়েট কোচিং করলেই যে ডুয়েটে চান্স পেয়ে যাবে তা নাহ। তবে একাডেমিক নলেজটা অনেক ভালো হয় ডুয়েট কোচিং- এ। সরকারি চাকুরী পরিক্ষার জন্য ডুয়েট কোচিং একটা বড় অবদান রাখবে।
এবার আসি ডিপ্লোমা’র পর চাকুরির চিন্তা বা বিএসসি’র চিন্তা।
ডুয়েট কোচিং করবো নাকি একটা প্রাইভেট ভার্সিটিতে ভর্তি হয়ে যাবো?
ডিপ্লোমার পর আহামরি যে ভালো পজিশন এ জব পাওয়া যাবে বা পাশ করার সাথে সাথেই যে চাকুরী হয়ে যাবে সেটা ভুল ধারনা তবে কিছু কিছু সময় অনেকেই চাকুরি পেয়ে যায়।
তবে ডিপ্লোমার পরেই অনেকের ফ্যামিলি মনে করে ছেলে চাকুরি করবে নিজে স্বাবলম্বী হবে বা নিজের মাথায় ও একটা ব্যাপার খেলে যে ডিপ্লোমা’র সবটা সময় ই ফ্যামিলি থেকে টাকা নিয়ে এসে ডিপ্লোমা শেষ করেছি এখন আবার কোন মুখেই বা ফ্যামিলি থেকে টাকা আনবো।
আমার মতে যদি ফ্যামিলির ভালো কোন সাপোর্ট থাকে তাহলে ডুয়েট কোচিং করায় বেস্ট।
আর যদি মনে হয় যে ফ্যামিলি থেকে সেই সাপোর্ট পাওয়া যাবে নাহ তাহলে ইন্টার্নশিপ এর পর একটা প্রাইভেট জব এর খোঁজ করা আর সাথে সরকারি সার্কুলারগুলোর দিকে নজর রেখে সেভাবে নিজেকে তৈরি করা।
লেখা : মীর সজিব
প্রাক্তন শিক্ষার্থী,
সিসিএন পলিটেকনিক ইন্সটিটিউট।

কমেন্ট করুন