ছাতার মতো জীবন -কোহিনূর আক্তার

ছাতার মতো জীবন
-কোহিনূর আক্তার

বেশ কিছু দিন ,কোনো কিছু লিখা হয় না ,
গত রাতে ফেইসবুকের জমিনে দেখতে পেলাম ,
তোফাইলটা চলে গেলো , তৎক্ষনাত আমার স্পন্দনটা
থেমে গেল ,আমিও চলে যাবো, সবাই ভুলে যাবে আমাকে । ছাতার যখন পুরোনো হয়,
ছিঁড়ে যায়, তখন ব্যবহার করা যায় না ,তার পর store Rom এর কোনো কোনায় পড়ে থাকে অকেজো
হয়ে যায় ছাতাটি । একটি জীবন ঠিক ছাতার মতো,
পুরোনো হলে তার দাম থাকে না । অকেজো হয়ে পড়ে
সংসারে জগতে ।
জীবনের একটি সঠিক সিদ্ধান্ত ছক এঁকে দিয়েছে
বিধাতা,জীবনের দেনা শোধ করতে হয় মৃত্যুর আগেই
যেমন একটি জীবন আর একটি জীবনকে জন্ম দেয় ,
জীবন বাঁচার জন্য দিক-দীক্ষায় বড় করে, তার দেনা
শোধ করতে হয় চিত্ত ছেঁড়া সন্তানকে দিক-দীক্ষা দিয়ে ।
এই তো বাহবা নদীর মতো চলছে নিয়মনীতি ।
অথচ জীবনের কাছে পরাজিত হয় নিজ জীবন
সব ভালো লাগা,
সংসার সন্তানদের জন্য ত্যাগ করতে হয়।
মধ্যবিত্ত সংসার যেন দোজখের শাস্তি,কষ্টের ব্যাখ্যা তাতেও হার মানায় ।
সন্তান যখন এসে বলে বাবা আমার একটি
বাইক লাগবে , রাতে খাবারের টেবিলে গোস্তের বাটী দেখলে সবাই খেতে বসে হাসি মুখে ।
মাসের শেষে কারেন্ট বিল,গ্যাস বিল,স্কুল বেতন
নতুন ব্যাগ , টিফিনের টাকা, ভাতের চালটা শেষ প্রায় ।
এই সব চাহিদার পিছনে দৌড়াতে দৌড়াতে জীবনের বুকে ঘুন হয় বসে রে ,,,,
অসুস্থতার সঠিক ঔষুধ কেনার টাকাটাও থাকে না সংসারের দায়িত্বশীলে ।
নিজ জীবনকে শাস্তি দিয়ে আর সবাইকে ভাবা
এ যেনো অভীষাপ পরমপরা জীবনের উপর বিধাতার
লিখিত দরখাস্ত ।
একটি জীবন যখন সবাইকে ভাবে তখন তার কথা কেউ ভাবে না , সে কি খেয়েছে, সে কেমন পোশাক পরছে , তার পায়ের জুতা জোড়া ঠিক আছে তো !
তার মনের অবস্থা কি । সে কেনো করছে এই সংসারের
মহা দায়িত্ব পালন ?কেনো করছে নিজের জীবনের সব ভালো থাকা ত্যাগ ?
কেউ কখনো ভেবে দেখে না ,
দেখবার সময় নেই কারো ।
যখন জীবনটি বেশ পুরোনো হয়ে যায়, তখন আরও বেশী ঝামেলা মনে হয়, বড় বেশী বেমানান মনে হয়
এই সেই সংসারে ।
পুরোনো ছাতার মতো ,,,
”গুরু মহা সংসার যদি দিলে
তবে অকালে কেনো তার স্বাদ নিলে ,,
৮/১২/১৯

কমেন্ট করুন